ঢাকা,
মেনু |||

বরিশালে স্কুল ফি’র নামে বাড়তি অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

 

করোনা বিপর্যয়ের মধ্যেও বরিশাল সদর উপজেলার চরকাউয়া নয়ানী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে গরীব ছাত্র ছাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৮ মার্চ থেকে সারা বাংলাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষনা হয়। এতে করে বিপাকে পরেছে সাধারন শিক্ষার্থীরা। একদিকে পড়াশোনার ক্ষতি, অন্যদিকে আর্থিক সংকটে অসহায় অভিভাবকরা। তারই ধারাবাহিকতায় বরিশাল সদর উপজেলার চরকাউয়া নয়ানী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে টিউশন ফি’র নামে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল সকালে স্কুল প্রাঙ্গনে অসহায় গরীব অভিভাবরা বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করেন। শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন,করোনা ভাইরাসের কারনে আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। আমরা স্কুলে আসি পরীক্ষার খাতা জমা দেওয়ার জন্য কিন্তু আমাদের বলা হচ্ছে ৩০ টাকা দিয়ে হবে তা না হলে খাতা নেওয়া হবে টাকা না দিলে টিসি দেওয়া হবে। এসময় তারা স্কুলের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে বাড়তি টাকা আদায়ের বিভিন্ন অভিযোগ করেন। অভিযোগ করে তারা বলেন, পরীক্ষার শুরুতে ভর্তি বাবদ ৭৩৫ টাকা জমা নেয়, এখন আবার তারা ৪৭৫ টাকা দাবী করে। কিন্তু এই টাকা কীসের জন্য নেওয়া হচ্ছে তা আমরা জানিনা। এক অসহায় অভিভাবক কাঁদো কাঁদো কন্ঠে অভিযোগ করে বলেন,দীর্ঘ আট মাস ধরে স্কুল বন্ধ ছিল আমাদের ছেলে মেয়েরা স্কুলে আসেনাই তারপরও তারা বিদ্যুৎ বিলের জন্য চাপ দিচ্ছে।

এ বিষয়ে নয়ানী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেক মুঠোফোনে তার বিরুদ্ধে অভিযোগের কথা অস্বীকার করে বলেন, আমরা কোনো বাড়তি ফি নিচ্ছি না। আমরা মাসিক ফি নিচ্ছি। আরেক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, আমি এখনো সরকারী প্রজ্ঞাপনের কপি দেখি নাই তবে শুনেছি বিদ্যুৎ বিলের কথা উল্লেখ করা আছে তাই আমরা নিচ্ছি। এখন প্রশ্ন হচ্ছে গত ১৮ নভেম্বর টিউশন ফি সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করেছে সরকার। সে একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক হয়ে কিভাবে সরকারি নির্দেশনার কপি না দেখে সিদ্ধান্ত নেয়। অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, কোনো অভিভাবক চরম আর্থিক সঙ্কটে থাকলে তার সন্তানের টিউশন ফি’র বিষয়টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ বিশেষ বিবেচনায় নেবেন।

এ বিষয়ে নয়ানী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মজিবর রহমান হালিম মুন্সি বলেন,সরকারি নির্দেশনার বাহিরে আমাদের স্কুলে কোনো কার্যক্রম হবে না।


akash bangla

প্রধান ‍উপদেষ্টা: মো: ‍আবু তালেব মিয়া
প্রকাশক: মো: ‍ইনাম মাহমুদ
সম্পাদক : রিয়াজ পাটওয়ারী
যুগ্ম সম্পাদক: খান আব্বাস
প্রধান সম্পাদক: মো: কামরুল ইসলাম
সহ সম্পাদক: মো: মেহেদী হাসান
নির্বাহী সম্পাদক: শাহাদাত তালুকদার
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: এম এইচ প্রিন্স
সা‌হিত‌্য সম্পাদক: এম কে সুমনা
Desing & Developed BY Engineer BD Network