ঢাকা,
মেনু |||

নৌ-বাহিনীর সদস্যকে মামলায় জড়ানোর হুমকি

স্টাফ রিপোর্টার :
বাবার সাথে শ্বাশুড়ির অনৈতিক সম্পর্কে বাঁধা দেয়ায় স্ত্রীকে দিয়ে নৌ-বাহিনীর সদস্যকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতিসহ মিথ্যে মামলায় জড়ানোর হুমকি দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
বৃহস্পতিবার সকালে বরিশাল নগরীর একটি রেস্তোরায় জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে ছেলে নৌ-বাহিনীর সদস্য সোলায়মান খান প্রিন্সের পক্ষে এ অভিযোগ করেন তার মা ফরিদা ইয়াসমিন। কাঠালিয়া উপজেলার কচুয়া গ্রামের মান্নান খানের স্ত্রী ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, শৌলজালিয়া গ্রামের সাবেক মহিলা ইউপি সদস্য বিধবা খালেদা বেগমের সাথে আমার (ফরিদা) স্বামীর কয়েক বছর ধরে পরকীয়া সম্পর্ক চলে আসছে। বিষয়টি গোপন রেখে তাদের অনৈতিক সর্ম্পক টিকিয়ে রাখতে ২০১১ সালে কৌশলে আমার ছেলের সাথে খালেদার মেয়ের বিয়ে দেয়া হয়।
তিনি আরও বলেন, তাদের এ অনৈতিক সর্ম্পক পারিবারিকভাবে জানার পর তাদের ফেরানোর জন্য একাধিকবার চেষ্টা করেও আমরা ব্যর্থ হয়েছি। যা আজ আমাদের পরিবারকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, বিয়ের পর আমার ছেলে নৌ-বাহিনীর সদস্য সোলায়মান খান প্রিন্স তার বাবা ও শাশুরীর কাছে অসংখ্যবার আকুতি-মিনতি করেও তাদের অনৈতিক সম্পর্ক থেকে ফেরাতে পারেনি।
অতিসম্প্রতি বিষয়টি মীমাংসার জন্য স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ হোসেন রিপনের সরনাপন্ন হলে তিনি পরিষদে ডাকায় উভয়ে ক্ষিপ্ত হয়। মীমাংসা বৈঠকে মিথ্যে পাওনা দাবি করে উল্টো খালেদা বেগম আমার ছেলে প্রিন্সের কাছে আট লাখ টাকা দাবি করে। তাদের দাবিকৃত টাকা না দিলে নৌ-বাহিনীর সদস্য সোলায়মান খান প্রিন্সের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী আজমেরী জাহানকে দিয়ে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনের অভিযোগে মিথ্যে মামলা দায়ের করার জন্য হুমকি প্রদর্শন করা হয়। সেই থেকে প্রতিনিয়ত টাকা না দিলে নৌ-বাহিনীর সদস্যর বিরুদ্ধে মিথ্যে মামলা দায়েরের জন্য অব্যাহতভাবে হুমকি প্রদর্শন করা হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে ফরিদা ইয়াসমিন তার পুত্র নৌ-বাহিনীর সদস্যর বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ ও হয়রানী থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ হোসেন রিপনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, অতিসস্প্রতি আপত্তিকর অবস্থায় খালেদা ও মান্নানকে স্থানীয়রা আটক করে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে আসে। সে সময় খালেদার সাথে মান্নানের বিয়ের সিদ্ধান্ত হয়। তাৎক্ষনিক খালেদা বেগমের মেয়ে আজমেরী জাহান নাটকীয়ভাবে অসুস্থ্য হয়ে পরলে সে যাত্রায় তারা রক্ষা পায়।


akash bangla

প্রধান ‍উপদেষ্টা: মো: ‍আবু তালেব মিয়া
প্রকাশক: মো: ‍ইনাম মাহমুদ
সম্পাদক : রিয়াজ পাটওয়ারী
যুগ্ম সম্পাদক: খান আব্বাস
প্রধান সম্পাদক: মো: কামরুল ইসলাম
সহ সম্পাদক: মো: মেহেদী হাসান
নির্বাহী সম্পাদক: শাহাদাত তালুকদার
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: এম এইচ প্রিন্স
Desing & Developed BY Engineer BD Network