ঢাকা,
মেনু |||

কোমলমতি শিক্ষার্থীদের জীবনে ফ্রি ফায়ার ও পাবজি গেম মহামারি রুপ ধারণ করছে

 

জাহিদ হাসান ঃ বাংদেশের অধিকাংশ অঞ্চলে দেখা গেছে যে দিন দিন ইন্টারনেট ফাইটিং ফ্রি ফায়ার গেমসে ঝুঁকছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। করোনায় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় অলস সময়ে এ গেমসে জড়িয়ে পড়ছে তারা। জানা গেছে, উড়তি বয়সের শিক্ষার্থীরা ও যুব সমাজ দিন দিন ফ্রি ফায়ার এবং পাবজি নামক গেমের নেশায় জড়িয়ে পড়েছে। যে সময় তাদের ব্যস্ত থাকার কথা নিয়মিত পড়ালেখাসহ শিক্ষা পাঠ গ্রহন নিয়ে বা খেলার মাঠে ক্রীড়া চর্চার মধ্যে। সেখানে তারা ডিজিটাল তথ্যপ্রযুক্তির যুগে জড়িয়ে পড়ছে গেমস নেশায়।১০/১৩ বছরের উড়তি বয়সের শিক্ষার্থীরা প্রতিনিয়ত অ্যান্ড্রয়েড ফোন দিয়ে এসব গেইমে আসক্ত হচ্ছেন। এসব বিদেশী গেম থেকে শিক্ষার্থী বা তরুণ প্রজন্মকে ফিরিয়ে আনতে না পারলে বড় ধরণের ক্ষতির আশঙ্কা দেখছেন বিশেষজ্ঞরা। ফায়ার গেমসে অনুরাগী অনেকে জানান , প্রথমে তাদের কাছে ফ্রি ফায়ার গেমস ভাল লাগত না। কিছু দিন বন্ধুদের দেখাদেখি খেলতে গিয়ে এখন সে আসক্ত হয়ে গেছেন। এখন গেমস না খেলে তাদের অস্বত্বিকর মনে হয়। অনেকে বলেছেন আমি পূর্বে গেমস সম্পর্কে কিছু জানতাম না কিন্তু এখন নিয়মিত ফ্রি ফায়ার ও পাবজি গেমস খেলতে অনেক ভালো লাগে । মাঝে মধ্যে গেমস খেলতে না পারলে মুঠোফোন ভেঙ্গে ফেলার ইচ্ছাও হয় । ফ্রি ফায়ার নামক গেমসকে মাদকদ্রব্যর নেশার চেয়ে ভয়ঙ্কর বলে উল্লেখ করেন মনোবিজ্ঞানীরা। তারা বলেন, এই সমস্যা থেকে আমাদের সন্তান, ভাই-বোনদের বাঁচাতে হলে অভিভাবকদের পাশাপাশি সমাজের সচেতন মহল, শিক্ষক-শিক্ষিকা, জনপ্রতিনিধি এবং প্রশাসনকে এগিয়ে আসতে হবে। অনেকে বলেন, আমরা আগের অবসর সময়টি বিভিন্ন খেলাধুলার মধ্য দিয়ে পার করতাম। কিন্তু এখনকার যুগে প্রজন্ম সন্তানদেরকে দেখা যাচ্ছে ভিন্ন চিত্র। উপজেলার গ্রাম-গঞ্জে মোবাইল ইন্টারনেট গ্রুপ গেম মহামারী আকার ধারন করেছে। শিক্ষার্থীরা অনেকে পড়ার টেবিল ছেড়ে খেলছে মোবাইল গেমস। কখনো ইন্টারনেটের খারাপ সাইটে বিভিন্ন ছবি দেখছে। এতে একদিকে তাদের ভবিষ্যৎ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। অন্যদিকে অপরাধ প্রবণতা বাড়ছে। তাই কিশোর-কিশোরীদের মা-বাবাসহ সমাজের সবার খেয়াল রাখতে হবে, যেন তারা মোবাইল অতিরিক্ত ব্যবহার না করে।


admin

প্রধান ‍উপদেষ্টা: মো: ‍আবু তালেব মিয়া
প্রকাশক: মো: ‍ইনাম মাহমুদ
সম্পাদক : রিয়াজ পাটওয়ারী
যুগ্ম সম্পাদক: খান আব্বাস
প্রধান সম্পাদক: মো: কামরুল ইসলাম
সহ সম্পাদক: মো: মেহেদী হাসান
নির্বাহী সম্পাদক: শাহাদাত তালুকদার
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: এম এইচ প্রিন্স
Desing & Developed BY Engineer BD Network