ঢাকা,
মেনু |||

শেবাচিম পরিচালক ডা.বাকিরের বাড়ির মূল্য ১৭ কোটি টাকা!

খাইরুল আলম রফিক :
ঘুষ, দুর্নীতি ও রাষ্ট্রীয় সম্পদ লুটপাট করে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়ে বিলাসি জীবন যাপন করছেন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন ।

ইতিপূর্বে সিরাজগঞ্জ শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রকল্প পরিচালক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। ঐ প্রকল্পের কাজে তার বিরুদ্ধে, কেনাকাটায় দুর্নীতি অনিয়মসহ নানা কারণে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে বদলী করা হয়। সেখানে তার বেশিদিন থাকতে হয়নি ।

তদবির করে গত বছরের ৩১ মার্চ বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পরিচালকের দায়িত্ব গ্রহন করেন। বিলাসি জীবনে বিশ্বাসী এ পরিচালক বরিশালের বগুড়া রোডে সাড়ে ১২ শতাংশ জমি কিনে একটি ৬ তলা বিশিষ্ট বাড়ি নির্মাণ করেছেন।
পাশাপাশি তার আরো একটি ৮তলা বিশিষ্ট বাড়ি নির্মাণাধীন অবস্থায় রয়েছে।
নিজের ও তার স্ত্রীর নামে বাড়ি দুটি নির্মাণে প্রায় ১৭ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে বলে ধারনা করছেন এলাকাবাসী।

যদি বেতনের টাকায় এ দুটি বাড়ি নির্মাণ করেন তবে- কীভাবে কাটান- এমন বিলাসী জীবন। তা এক অপার রহস্য।
এই রহস্য আরও ঘনীভূত হয়েছে তার দুটি বিশাল বাড়ি নির্মাণ করায়। তিনি কিভাবে ১৭ কোটি মূল্যের দুটি বাড়ি ও অর্ধকোটি টাকার গাড়ীর মালিক হলেন! তা নিয়ে এখন আলোচনা চলছে বরিশাল ও পূর্বের কর্মস্থল সিরাজগঞ্জে। অভিযোগ রয়েছে, এ দুটি বাড়ি ছাড়াও রাজধানী ঢাকায়, তার গ্রামের বাড়িসহ বিভিন্নস্থানেও জমিজমা ও সম্পদ রয়েছে ।
সরেজমিনে, যে এলাকায় বাড়ি নির্মাণ করছেন, সেখানকার এমন কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ৮ তলা ফাউন্ডেশন দিয়ে করা বাড়িটির নির্মাণকাজ শেষ করতে আরো কয়েক কোটি টাকার মতো ব্যয় হবে। ডা. মো. বাকির হোসেনের এত সম্পদের পেছনে বড় ধরনের দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত থাকার আশঙ্কা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বরিশাল ও সিরাগঞ্জের রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

তারা বলেন, যেহেতু তিনি সরকারি চাকুরিজীবি, সেহেতু তার সম্পদের বিষয়ে তদন্ত ভালোভাবে করতে হবে। মন্ত্রণালয়কেই এ বিষয়ে কাজ করতে হবে।
তা ছাড়া একজন দুর্নীতিবাজ কখনই এককভাবে দূর্নীতি করতে পারে না। তার সঙ্গে আরও অনেকেই জড়িত থাকতে পারে। এসব তদন্ত করে দুর্নীতিবাজদের সবার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নিতে হবে।

পাশাপাশি তাকে নজরদারির আওতায় আনতে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকে অভিযোগ জমা দ্ওেয়া হয়েছে ।

এ ব্যাপারে ডা. মো. বাকির হোসেন জানান, বেতনের টাকা দিয়েই বাড়ি নির্মাণ করেছি। অবৈধ কিছু করিনি।


রিয়াজ পাটওয়ারী

প্রধান ‍উপদেষ্টা: মো: ‍আবু তালেব মিয়া
প্রকাশক: মো: ‍ইনাম মাহমুদ
সম্পাদক : রিয়াজ পাটওয়ারী
যুগ্ম সম্পাদক: খান আব্বাস
প্রধান সম্পাদক: মো: কামরুল ইসলাম
সহ সম্পাদক: শরিফুল আলম সোহেল
নির্বাহী সম্পাদক: শাহাদাত তালুকদার
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: এম এইচ প্রিন্স
Desing & Developed BY Engineer BD Network