ঢাকা,
মেনু |||

লভ্যাংশ-সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত জানালো ৩২ কোম্পানি

অনলাইন ডেস্ক:
পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ৩২টি কোম্পানি তাদের লভ্যাংশ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত গত সপ্তাহে জানিয়েছে। কোম্পানিগুলোর পরিচালনা পর্ষদ ২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে লভ্যাংশের এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

লভ্যাংশ ঘোষণার পাশাপাশি কোম্পানিগুলো তা শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদনের জন্য বার্ষিক সাধারণ সভার (এজিএম) তারিখ নির্ধারণ করেছে। একই সঙ্গে লভ্যাংশপ্রাপ্ত যোগ্য বিনিয়োগকারী নির্ধারণে রেকর্ড জানিয়েছে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে- এস্কয়ার নিট কম্পোজিট, শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ, কোহিনূর কেমিক্যালস, এসিআই ফরমুলেশন, বিকন ফার্মা, বারাকা পাওয়ার, ওরিয়ন ইনফিউশন, বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেমস, প্রিমিয়ার সিমেন্ট, আনলিমা ইয়ার্ন, দেশবন্ধু পলিমার, অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ, সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল রিফাইনারি, ইফাদ অটোস, এইচ আর টেক্সটাইল, মালেক স্পিনিং, অ্যাপেক্স স্পিনিং, আইটি কনসালটেন্ট, ন্যাশনাল টি, ওয়াটা কেমিক্যাল, বিডি অটোকার, সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যাল, স্কয়ার টেক্সটাইল, এমজেএল বাংলাদেশ, কাশেম ইন্ডাস্ট্রিজ, তিতাস গ্যাস, গোল্ডেন হার্ভেস্ট, খুলনা পাওয়ার, মুন্নু জুট স্টাফলার্স, বিবিএস কেবলস এবং অ্যাপেক্স ফুড।

ওরিয়ন ইনফিউশন

শেয়ারহোল্ডারদের ১৪ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিএম ২৫ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৭ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৯৭ পয়সা। ২০১৯ সালের ৩০ জুন শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১২ টাকা ৬৬ পয়সা।

প্রিমিয়ার সিমেন্ট

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিএম ২১ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৭ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ৫ টাকা ৮০ পয়সা। শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৪৮ টাকা ১৯ পয়সা।

বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেমস

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিএম ২১ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ২১ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৯৮ পয়সা। শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ৫০ পয়সা।

ইফাদ অটোস

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিম ১২ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৯ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ৪ টাকা ৫৯ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৩৯ টাকা ১৮ পয়সা।

এসিআই ফর্মূলেশন

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৩৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিএম ২৩ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ৩ ডিসেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে সমন্বিত শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে ২ টাকা ৯০ পয়সা। আর সমন্বিত শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৫৪ টাকা ৮৫ পয়সা।

দেশবন্ধু পলিমার

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিএম ২৪ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ২১ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ৪৭ পয়সা। শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ১০ টাকা ৭২ পয়সা।

কোহিনুর কেমিক্যাল

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২০ শতাংশ নগদ এবং ২০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিএম ১৫ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৭ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ১০ টাকা ৩৭ পয়সা। শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৫২ টাকা ৪২ পয়সা।

বারাকা পাওয়ার

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিএম ২৯ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৮ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৭১ পয়সা। শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ১৮ টাকা ৪২ পয়সা।

আনলিমা ইয়ার্ন

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিএম ২২ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ২০ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে ইপিএস হয়েছে ৫২ পয়সা। শেয়ার প্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ১১ টাকা ৫ পয়সা।

সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল-

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিএম ২৪ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ২১ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ১২ পয়সা। শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ১৪ টাকা ৫৭ পয়সা।

শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ-

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিএম ২৬ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ২৫ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব ইপিএস হয়েছে ৯০ পয়সা। আর ২০১৯ সালের জুন শেষে শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ১৭ টাকা ৫৩ পয়সা।

বিকন ফার্মা

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিএম ২৪ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৭ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৫১ পয়সা।

অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ

শেয়ারহোল্ডারদের কোন লভ্যাংশ না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিএম ১২ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৮ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৬ টাকা ৯ পয়সা।

এইচ আর টেক্সটাইল

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিম ২২ জানুয়ারি এবং রেকর্ড ডেট ২৭ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৯১ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৪৩ টাকা ৪০ পয়সা।

মালেক স্পিনিং

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিম ২১ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১২ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ৭৬ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৪৫ টাকা ১৩ পয়সা।

অ্যাপেক্স স্পিনিং

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিম ১২ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১১ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৯৩ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৫৫ টাকা ৮ পয়সা।

আইটি কনসালটেন্ট

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৫ শতাংশ নগদ ও ৭ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিম ৫ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৫ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৫৭ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ২৭ পয়সা।

ন্যাশনাল টি

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিম ২৪ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৯ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ২০ টাকা ২৪ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ১৭৪ টাকা ২৪ পয়সা।

ওয়াটা কেমিক্যাল

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৩০ শতাংশ নগদ ও ২৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিম ২৬ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৯ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ১১ টাকা ৬৩ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৬৬ টাকা ৮৫ পয়সা।

বিডি অটোকার

শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ। এ সংক্রান্ত এজিম ১৫ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১১ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৫৩ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৭ টাকা ৪৪ পয়সা।

সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ-

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম আগামী ৩০ জানুয়ারি এবং রেকর্ড ডেট ২৮ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৭৩ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ২৫ টাকা ৩৮ পয়সা।

স্কয়ার ফার্মা

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৪২ শতাংশ নগদ এবং ৭ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম ১২ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৯ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ১৬ টাকা ৩ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৮৬ টাকা ৩ পয়সা।

স্কয়ার টেক্সটাইল

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম ১২ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৯ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ১৮ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৩৮ টাকা ২ পয়সা।

এমজেএল বাংলাদেশ

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৪৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম ৫ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১২ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ৫ টাকা ৮৭ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৩৫ টাকা ৬৪ পয়সা।

কাশেম ইন্ডাস্ট্রিজ

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৫ শতাংশ নগদ ও ৭ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম ১২ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৯ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ৮৩ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৩৩ টাকা ১৮ পয়সা।

তিতাস গ্যাস

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২৬ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম ২২ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৮ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ৪ টাকা ৭০ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ৭০ টাকা ৮ পয়সা।

গোল্ডেন হার্ভেস্ট

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৭ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম ২৮ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৮ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৩ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ২০ টাকা ১ পয়সা।

খুলনা পাওয়ার

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৪০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম ১ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৪ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ৫০ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ২৫ টাকা ২০ পয়সা।

মুন্নু জুট স্টাফলার্স

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২০ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম ৫ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৪ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৭৪ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ১৪ টাকা ৫৯ পয়সা।

বিবিএস কেবলস

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম ২১ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ২১ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ৯ টাকা ১৭ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ২৯ টাকা ৪৫ পয়সা।

অ্যাপেক্স ফুড

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ সংক্রান্ত এজিম ১২ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১১ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সামাপ্ত অর্থবছরে ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৭ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ দাঁড়িয়েছে ১২৪ টাকা ৩০ পয়সা।


রিয়াজ পাটওয়ারী

প্রধান ‍উপদেষ্টা: মো: ‍আবু তালেব মিয়া
প্রকাশক: মো: ‍ইনাম মাহমুদ
সম্পাদক : রিয়াজ পাটওয়ারী
যুগ্ম সম্পাদক: খান আব্বাস
প্রধান সম্পাদক: মো: কামরুল ইসলাম
সহ সম্পাদক: শরিফুল আলম সোহেল
নির্বাহী সম্পাদক: শাহাদাত তালুকদার
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: এম এইচ প্রিন্স
Desing & Developed BY Engineer BD Network