ঢাকা,
মেনু |||

বন্যায় মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে কুড়িগ্রামের চরাঞ্চলের শিশুরা

 

অনলাইন ডেস্ক :
কুড়িগ্রামের মাসব্যাপী বন্যায় বয়স্করা কোনও রকমে দিন পার করলেও মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে চরাঞ্চলের শিশুরা। শিশুদের খাবার যোগানো কঠিন হয়ে পড়েছে সেখানকার বাবা-মায়েদের জন্য। বন্যার সময় রোগবালাই থেকে শিশুদের সুস্থ রাখা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন বাবা-মায়েরা।

 

কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের মশালের চরে সাড়ে ৩শ’ পরিবারে রয়েছে ৫ শতাধিক শিশু। বন্যার পানি বসতবাড়িতে ঢুকে পড়ায় ১ মাসেরও বেশি সময় ধরে শিশুদের নিয়ে ঘরের ভেতর মাচায় ও নৌকায় বসবাস করছে বন্যা কবলিতরা।

 

 

করোনা মহামারিতে এমনিতেই কমেছিলো উপার্জন, তার ওপর বন্যার থাবা। এ পরিস্থিতিতে নিজেরা কোনো রকমে দিন পার করলেও শিশুদের খাবার যোগান দিতে গিয়ে বিপাকে পড়েছেন এখানকার বাসিন্দারা। শিশুদের মায়েরা বলেন,’আমরা তো তাও এক মুঠ ডাল ভাত খেয়ে থাকছি। কিন্তু বাচ্চাগুলো কি খাবে। বাচ্চার বয়স তিন মাস। আমি ঠিক মতো খেতে পাচ্ছি না। বাচ্চা ঠিক মতো খাবার পাচ্ছে না। কি করে বাঁচবে সে। ‘ শুধু মশালের চর নয় ব্রহ্মপুত্র ও ধরলার অববাহিকায় প্রায় ৪ শতাধিক চরের শিশুদের দুর্ভোগের চিত্র এটি।

 

 

কুড়িগ্রামের সিভিল সার্জন জানান, বন্যা কবলিত এলাকায় শিশুস্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতে কাজ করছে স্বাস্থ্য বিভাগ। সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান বলেন,’শিশুদের সেবা দেবার জন্য আমাদের স্বাস্থ্য বিভাগের প্রতিটি কর্মী কাজ করে চলেছে। স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। তারা যেন চিকিৎসা পায় সে বিষয়ে স্বাস্থ্য বিভাগ স্বচেষ্ট রয়েছে।’

 

বন্যায় মা ও শিশুদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম। তিনি বলেন,’সরকারের পক্ষ থেকে সে সহায়তা আমরা পেয়েছি সেখানে শিশু খাদ্য আগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে। আর মাদের জন্য মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর থেকেও সহায়তা দেয়া হয়েছে।’

 

বন্যা দুর্গত এলাকায় শিশু ও মায়েদের সুরক্ষায় শিগগিরই কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি ভুক্তভোগীদের।


admin

প্রধান ‍উপদেষ্টা: মো: ‍আবু তালেব মিয়া
প্রকাশক: মো: ‍ইনাম মাহমুদ
সম্পাদক : রিয়াজ পাটওয়ারী
যুগ্ম সম্পাদক: খান আব্বাস
প্রধান সম্পাদক: মো: কামরুল ইসলাম
সহ সম্পাদক: মো: মেহেদী হাসান
নির্বাহী সম্পাদক: শাহাদাত তালুকদার
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: এম এইচ প্রিন্স
Desing & Developed BY Engineer BD Network