ঢাকা,
মেনু |||

এক নির্বাচনেই দেড়যুগ চেয়ারম্যান!

নুরেআলম, অতিথি প্রতিবেদক:
ভোলার লালমোহন উপজেলার ৭নং পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নে দেড়যুগেরও বেশী কোন নির্বাচন হচ্ছেনা।ফলে অত্র ইউনিয়নের সাধারন জনগন ও রাজনীতি সংশ্লীষ্টদের মাঝে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোশ বিরাজ করছে।এ ছাড়া এই ইউনিয়নে আদৌ কোন নির্বাচন হবে কিনা এ নিয়েও নানা প্রশ্ন রয়েছে সাধারন মানুষের মাঝে।
যানাযায়,এই ইউনিয়নের ৪৮নং পশ্চিম চরউমেদ ভোট কেন্দ্রটি বিচ্ছিন্ন দ্বীপ চরকচুয়া স্থানান্তরের দাবী জানিয়ে জনৈক সিরাজুল হক নামের এক ব্যাক্তি উচ্চ আদালতে রীট দায়ের করেন আর এই রীটটি বর্তমান চেয়ারম্যানেই করান।২০১১ সালে দায়ের করা এ রীট পিটিশনের কারনে ১৯ বছর যাবৎ ইউনিয়নটিতে নির্বাচন বন্ধ।

এমতাবস্থায় জনগনের মৌলিক অধিকার বাস্তবায়নের জন্য সব জটিলতার অবসান ঘটিয়ে বার বার নির্বাচনের জোড় দাবী জানান এলাকাবাসী।
সুত্রমতে, ২০০৩ সালে ২২ ফেব্রুয়ারী সারাদেশের মতো এই ইউনিয়নেও নির্বাচন হয়। নিজ দল ক্ষমতায় থাকার সুবাধে আবু ইউসুফ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ৫ বছর মেয়াদ শেষ হওয়ার শেষ মুহুর্তে বিএনপি জামাত জোট সরকার ক্ষমতা হাড়ান। এর পরে ওয়ান ইলেভেন সরকার ‍ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন করতে পারেনি । ২০০৮ সালে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার পরে ২০১১ সালে সিরাজুল হক ব্যাক্তি উচ্চ আদালতে রীট পিটিশন দায়ের করেন।এর পরে নির্বাচন কমিশন কয়েক দফা নির্বাচনের উদ্দেগ নিলেও মামলা বাজদের মামলা বাজির কারনে তা আর করতে পারেনী।এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বলেন এই ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচন কমিশন কয়েক দফা আদেশ দিলেও রীট পুনরায় রীটের কারনে ইউনিয়নটিতে নির্বাচন করা যাচ্ছেনা।

স্থানীয়দের অভিযোগ চেয়ারম্যান দীর্ঘমেয়াদী চেয়ারম্যানের পদ ধরে রাখতেই কারসাজী করে একের পর এক পিটিশন দায়ের করছেন পরে তার সাথে যোগ হোন ‍ইউপি সদস্যরাও। সাবেক চেয়ারম্যান হাজ্বী আবু তাইয়েব বলেন ব্যাক্তি স্বার্থের চেয়েও জনগনের মৌলিক চাহিদা দেখতে হবে আগে।কারন জনগনের মৌলিক চাহিদা পূরনের জন্য জনগন প্রতিনিধি নির্বাচন করেন।তাই জনগনের মৌলিক চাহিদা আদায়ের জন্য নির্বাচনের বিকল্প নেই।স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন একেই ব্যাক্তি বার বার ক্ষমতার চেয়ারে খাকলে দাম্ভীকতা বেড়ে যায়।জনগনও তার থেকে মুখ ফিরিয়ে নেন যেমনটি অত্র ইউনিয়নে।ক্ষমতার পরিবর্তন না হলে নেতৃত্বের বিকাশ ঘটেনা যার ফলে জনগনও সুফল পায়না। এমতাবস্থায় নির্বাচনের জোর দাবী জানান এলাকাবাসী।


akash bangla

প্রধান ‍উপদেষ্টা: মো: ‍আবু তালেব মিয়া
প্রকাশক: মো: ‍ইনাম মাহমুদ
সম্পাদক : রিয়াজ পাটওয়ারী
যুগ্ম সম্পাদক: খান আব্বাস
প্রধান সম্পাদক: মো: কামরুল ইসলাম
সহ সম্পাদক: মো: মেহেদী হাসান
নির্বাহী সম্পাদক: শাহাদাত তালুকদার
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: এম এইচ প্রিন্স
Desing & Developed BY Engineer BD Network